Dark Mode
Sunday, 29 January 2023
Logo
ইবির প্রকৌশলীর ফোনালাপ ফাঁস, অফিস ভাঙচুর

ইবির প্রকৌশলীর ফোনালাপ ফাঁস, অফিস ভাঙচুর

নিউজ ডেস্ক:


আলিমুজ্জামান টুটুল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (সাবেক প্রধান প্রকৌশলী) এর সাথে অজ্ঞাত এক ছাত্রীর আপত্তিকর ফোনালাপ ফাঁসের অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ১৯ নভেম্বর শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা আলিমুজ্জামান টুটুলের বিচার দাবিতে প্রধান প্রকৌশলী মুন্সী সহিদ উদ্দীন মো. তারেকের অফিস ভাঙচুর ও প্রকৌশল অফিসের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন।

 

প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা যায়, টুটুলের আপত্তিকর ফোনালাপে বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীরা প্রধান প্রকৌশলীর অফিসে যায়।
আলোচনার এক পর্যায়ে ক্ষুব্ধ হয়ে প্রধান প্রকৌশলীর অফিস ভাঙচুর করে শিক্ষার্থীরা। সাথে সাথে প্রকৌশল অফিসের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় তারা। ফলে প্রধান প্রকৌশলীসহ কয়েকজন ভেতরে আটকে পরে যায়। আন্দোলনে অংশগ্রহনকারী ইসতিয়াক, শাকিল, বিন্ত, শাহীন পাশা, উম্মে হাবীবা হ্যাপীসহ ৪০/৫০ জন শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মীদের দেখা যায়।

 

এ বিষয়ে প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মুন্সি শহিদ উদ্দিন তারেক বলেন, আমার অফিস কেন ভাঙচুর করা হলো আমার জানা নেই, এটি তো একজনের একটি ব্যক্তিগত বিষয়।।

পরে আন্দোলনকারীরা টুটুলের স্থায়ী বহিষ্কার চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালামের কাছে একটি স্মারকলিপি জমা দেন।

 

স্মারকলিপিতে তারা উল্লেখ করেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী ও বর্তমান তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আলিমুজ্জামান টুটুলের নামে ৬ মিনিট ২১ সেকেন্ডের আপত্তিকর অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। যা বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থী, যারা দেশ ও দেশের বাইরে অবস্থান করছেন তাদেরকে বিব্রত করছে। একই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনামও বিনষ্ট করেছে।

এর আগেও ২০১৩ সালে কুষ্টিয়ায় এক শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীদের গোপন ভিডিও ধারণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মামলা হলে গ্রেফতার ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার হন। এতে অভিযুক্ত টুটুলের স্থায়ী বহিষ্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন শিক্ষার্থীরা।

Comment / Reply From